The Bangladesh Today | Uniting people everyday

ঢাকা বৃহস্পতিবার, ২১ অক্টোবর ২০২১

বাইডেনের সাথে শুরুটা ভালো হলো না: এরদোয়ান

বাইডেনের সাথে শুরুটা ভালো হলো না: এরদোয়ান
ছবি: সংগৃহীত

রাশিয়া থেকে এস-৪০০ ক্ষেপণাস্ত্র প্রতিরক্ষাব্যবস্থা কেনা নিয়ে যুক্তরাষ্ট্র ও তুরস্কের মধ্যে দ্বন্দ্ব বিদ্যমান। এ দ্বন্দ্বের এখনও কোনো সুরাহা হয়নি। এ নিয়ে টানাপোড়েনের মধ্যে তুরস্কের প্রেসিডেন্ট রিসেপ তাইয়েপ এরদোগান বলেছেন, আমি জর্জ ডব্লিউ বুশ, বারাক ওবামা এবং ডোনাল্ড ট্রাম্পের সঙ্গে ভালোভাবে কাজ করেছি। কিন্তু জো বাইডেনের সঙ্গে আমরা ভালোভাবে শুরু করেছি, সেটি বলতে পারব না।

নিউইয়র্কে জাতিসংঘ সাধারণ পরিষদের সাইডলাইনে এক সাক্ষাৎকারে জো বাইডেনের ওপর অসন্তুষ্টি প্রকাশ করে এরদোগান এ কথা বলেন। খবর ডেইলি সাবাহর।

 

এরদোয়ান বলেন, বাইডেন দায়িত্ব নেওয়ার আগে তিনি ওয়াশিংটনের উপর অসন্তুষ্ট ছিলেন। বিশেষ করে দুই বছর আগে রুশ-নির্মিত অত্যাধুনিক এয়ার ডিফেন্স এস-৪০০ কেনার ব্যাপারে সম্মত হওয়ায় যুক্তরাষ্ট্র এফ-৩৫ কর্মসূচি থেকে তুরস্ককে সরিয়ে দেয় এবং তাদের ওপর নিষেধাজ্ঞা আরোপ করে।

যুক্তরাষ্ট্র থেকে আঙ্কারা প্রায় ১০০টি স্টিলথ যুদ্ধবিমান কিনতে চেয়েছিল। এরদোয়ান বলেন, আমরা এফ-৩৫ কিনেছি। তার জন্য ১৪০ কোটি ডলার দিয়েছি। কিন্তু আমাদের কাছে সে বিমান পৌঁছে দেয়া হয়নি। আমাদের এয়ার ডিফেন্স এস-৪০০ কেনার ব্যাপারটি সম্পন্ন হয়েছে। এর পেছনে ফিরে যাওয়া সম্ভব নয়। বিষয়টি যুক্তরাষ্ট্রকে বুঝতে হবে। আমরা, তুর্কিরা সৎ। কিন্তু দুর্ভাগ্যবশত যুক্তরাষ্ট্র আগেও ছিল না, এখনো নেই। আঙ্কারা এখন অন্য দরজাতেও কড়া নাড়বে এবং প্রতিরক্ষার জন্য যা প্রয়োজন কিনে নেবে।

আফগানিস্তান থেকে মার্কিন সেনা প্রত্যাহারের ব্যাপারে তিনি বলেন, যুক্তরাষ্ট্র যেভাবে সেনা প্রত্যাহার করেছে, এতে বিশৃঙ্খলা সৃষ্টি হয়। এর জন্য যুক্তরাষ্ট্রকে অবশ্যই মূল্য দিতে হবে। আফগানিস্তান থেকে যেসব নাগরিক দেশ ত্যাগ করেছে, তাদের ক্ষেত্রেও যুক্তরাষ্ট্রকে মূল্য দিতে হবে।

দেশত্যাগী আফগানদের ব্যাপারে এরদোয়ান বলেন, শরণার্থীরা এখন কোথায় যাচ্ছে? তুরস্কের দরজা খুলে তাদের গ্রহণ করা অসম্ভব। কারণ তুরস্ক এরইমধ্যে প্রায় ৫০ লাখ অভিবাসী ও শরণার্থী নিজেদের দেশে স্থান দিয়েছে, যার মধ্যে সিরিয়া থেকে এসেছে প্রায় ৩৭ লাখ এবং আফগানিস্তান থেকে প্রায় চার লাখ ২০ হাজার।