The Bangladesh Today | Uniting people everyday

ঢাকা বৃহস্পতিবার, ২১ অক্টোবর ২০২১

শিরোনাম
  • চৌমুহনীতে নিহত ও ক্ষতিগ্রস্ত মন্দিরে এমপির আর্থিক সহায়তা প্রদান চিলমারীতে এক রাতেই তিস্তায় বিলীন ১৫ বাড়ি চিলমারীতে জেলের জালে ধরা পড়ল সাড়ে ১৫ কেজির বোয়াল মাছ বিএনপি সরকারের আমলে রেলের কোন উন্নয়ন হয়নি: রেলমন্ত্রী বরিশাল বিশ্ববিদ্যালয়ে সশরীরে ক্লাস শুরু ভারী বৃষ্টিপাত ও বন্যায় মধুখালীর সবজি বাজারে আগুন সংখ্যালঘুদের ওপর হামলা ও সহিংসতার প্রতিবাদে বাগেরহাটে হিউম্যান রাইটস্ ডিফেন্ডার্স ফোরামের মানববন্ধন​​​​​​​ মুরাদনগরে সিএনজি চালক হত্যাকাণ্ডের ঘটনায় আরও ৩ জন গ্রেফতার সাম্প্রদায়িক হামলা ও ধর্মীয় সহিংসতার প্রতিবাদে মাভাবিপ্রবিতে মানববন্ধন পাপুয়া নিউগিনিকে হারিয়ে সুপার টুয়েলভে বাংলাদেশ
  • সন্তান নিখোঁজ প্রায় ৭ মাস, জীবিত না হলেও লাশ চান মা

    সন্তান নিখোঁজ প্রায় ৭ মাস, জীবিত না হলেও লাশ চান মা

    হাসান পিন্টু, লালমোহন (ভোলা) প্রতিনিধি: কলেজ পড়ুয়া ছেলেকে ফিরে পেতে দ্বারে দ্বারে ঘুরছেন অসহায় মোসা. হাসিনা নামের এক মা। থানা পুলিশ থেকে আদালত, সবখানেই ছেলের সন্ধানে চেয়ে ঘুরছেন তিনি।

    শনিবার বিকালে লালমোহন প্রেসক্লাবে প্রশাসনের কাছে ছেলের সন্ধান চেয়ে সংবাদ সম্মেলন করেন মোসা. হাসিনা।

    তিনি চরফ্যাসন উপজেলার দুলারহাট থানার আবু বকরপুর ইউনিয়নের ৭ নং ওয়ার্ডের বাসিন্দা। 

    সংবাদ সম্মেলনে লিখিত বক্তব্যে তিনি বলেন, চলতি বছরের ১৫ ফেব্রুয়ারি সোমবার সকালে আমার ছেলে রিয়াদুল হক টিটুকে চরফ্যাশন পৌরসভা ৫নং ওয়ার্ড কাউন্সিলর প্রার্থী (তখন চরফ্যাশর পৌরসভার ভোট চলছিল) গিয়াস উদ্দিনের শালা এনজেল ও তার বন্ধু রনি, জাবেদ, শামিম ও আরিফ নির্বাচনের প্রচারণার জন্য ডেকে নেয়। ওই দিন বিকালে টিটু বাড়িতে না আসলে আমার বড় ছেলে ও স্বামী রাত ৯টা পর্যন্ত অপেক্ষা করার পর গিয়াস উদ্দিনের কাছে মোবাইলে ছেলের কথা জানতে চাইলে সে বলল আপনার ছেলে আমার বাসায় আছে। এরপর এনজেলের কাছে ফোন করলে তার মোবাইল বন্ধ পাওয়া যায়। তখন থেকে এ পর্যন্ত রিয়াদুল হক টিটু নিখোঁজ রয়েছে। ছেলে নিখোঁজের ঘটনায় চরফ্যাশন থানায় গত ১৭ ফেব্রুয়ারি মামলা করার জন্য গেলে ওসির পরামর্শে মামলা না করে তিনি জিডি করেন। জিডি নং-৬৯৪/২১ তারিখ ১৭/০২/২০২১ ইং। পরে সে কপি দুলারহাট থানায় জমা দেয়া হয়। 

    নিখোঁজ টিটুর মা হাসিনা আরও বলেন, চরফ্যাশন ও দুলারহাট থানা আমার ছেলের ব্যাপারে কোন ব্যবস্থা না নেয়ায় নিরুপায় হয়ে ২৮ আগস্ট ভোলার আদালতে একটি মামলা দায়ের করেছি। মামলায় বাসা থেকে টিটুকে ডেকে নেয়া এনজেল ও রনিসহ ৬ জনকে আসামী করা হয়। আদালতে মামলা করায় আসামীরা আমাদের পরিবারের সদস্যদের প্রাণনাশের হুমকি প্রদান অব্যাহত রেখেছেন। প্রকাশ্যে আসামীরা চলফেরা করলেও পুলিশ তাদেরকে গ্রেফতার করছে না। 

    হাসিনা বলেন, দীর্ঘ প্রায় ৭ মাস পার হলেও ছেলের কোন খবর পাচ্ছি না। এখন আমি আমার ছেলেকে জীবিত না হোক মৃত হলেও লাশটা দেখতে চাই। আমি প্রশাসনসহ মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার কাছে দাবী জানাচ্ছি আমার ছেলেকে ফিরিয়ে দেয়ার।

    এব্যাপারে দুলারহাট থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মোরাদ হোসেন বলেন, আদালত আসামী গ্রেফতারের কোন নির্দেশ দেয়নি। কেবল বলেছে ভিকটিমকে উদ্ধারের চেষ্টা করতে। আমরা অনেক চেষ্টার পরেও নিখোঁজ টিটুকে উদ্ধার করতে পারিনি। তাই এ মর্মে কোর্টে একটি প্রতিবেদনও প্রেরণ করা হয়েছে।


    সর্বশেষ

    আরও পড়ুন