The Bangladesh Today | Uniting people everyday

ঢাকা বৃহস্পতিবার, ২৩ সেপ্টেম্বর ২০২১

সুযোগের অভাবে ভদ্রলোক হয়ে থাকা সমস্ত পাপীর রেকর্ড আল্লাহর কাছে অবশ্যই আছে

সুযোগের অভাবে ভদ্রলোক হয়ে থাকা সমস্ত পাপীর রেকর্ড আল্লাহর কাছে অবশ্যই আছে
ফাইল-ছবি

বাংলাদেশের একজন জনপ্রিয় গায়ক আসিফ আকবর।  গানের পাশাপাশি এই শিল্পী সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমেও বেশ সরব। সমসাময়িক নানা বিষয় নিয়ে প্রায়ই কথা বলেন তিনি।

সম্প্রতি দেশের বিনোদন জগত নিয়ে চলছে সমালোচনা-সমালোচনা। সেটাকে কেন্দ্র করে নেটিজেনরা তারকাদের নিয়ে নানা কথা বলছেন। এ বিষয়ে আক্ষেপ প্রকাশ করলেন আসিফ আকবর।

এক ফেসবুক স্ট্যাটাসে তিনি জানান, পৃথিবী থেকে বিদায় নিতে হবে সবাইকে। আমরা যারা শোবিজে কাজ করি, কারও কারও হিসেবে তারা সবাই দোজখে আগুন ধরানোর এক নম্বর লাকরী। আমাদের সমস্ত পাপের শাস্তি দুনিয়াতে আর আখেরাতে একই মাত্রার কি না জানি না।

সিনেমা নাটক গানসহ সমস্ত শৈল্পিক চর্চাকে আজকাল ঘৃণার চোখে দেখা হয়। অত্যাচারী লুটেরা ক্ষমতার অপব্যবহারকারী সুদ-ঘুষ খোর হারামজাদারা হয় রাষ্ট্রের এলিট সিটিজেন। মাঝে মাঝে প্রশ্ন জাগে, আপনাদের ঘৃণাভরা মনে আমাদের অস্তিত্ব কিভাবে কাজ করে! আমি গান গেয়েছি পাপ করেছি, আমার শাস্তি দুনিয়ায় অভিশপ্ত হয়ে বেঁচে থাকা।

আসিফ বলেন, আপনাদের কেউ কেউ গান শুনবেন, আর ব্র্যাকেটে জাহান্নামের ভয় দেখাবেন! এ কেমন বৈপরীত্য! রঙ্গীন দুনিয়া আপনার দৃষ্টি আকর্ষণ করেছে। আপনিও মজা পাচ্ছেন, ফাঁকে ফাঁকে রঙ্গীন দুনিয়ার সঙ্গত পেতে টাকা ঢালছেন নিজের যেকোনো পন্থায় উপার্জনের গরমে। সুযোগের অভাবে ভদ্রলোক হয়ে থাকা সমস্ত পাপীর রেকর্ড আল্লাহর কাছে অবশ্যই আছে।

শোবিজ এত ঘৃণার জায়গা হলে ব্যান করে দেওয়া কোক দেশের চলিত সিলেবাস থেকে। আমি পুরুষ হিসেবে নিজেই সুযোগ সন্ধানি অপরাধী। আমাকে ধরতে হলে আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর হাতে প্রমাণের অভাব নেই। যারা ধরবেন তাদের চলাচল তো আমাদের সঙ্গেই!

তিনি আরও বলেন, এই নগরে রাতের অন্ধকার জগতে পোশাকে পোশাকে কোনো পার্থক্য হয় না। ক্ষমতা যার কাছে তিনি সাধু, বাকী ধৃতরা সব অপরাধী, অথচ সবাই সবাইকে চেনে। হঠাৎ করে ধরা পড়া অপরাধীরা নিজে নিজে তৈরি হয়নি। তাদের পেছনে কেউ ছিল যারা রাষ্ট্রের প্রভাবশালী। আজকাল বেশি কথা বলতে চাই না, এখন ভয় লাগে। সব কথা বলাও ঠিক না।

শোবিজের নাম ভাঙ্গিয়ে খুব মজা হচ্ছে সুপার সিভিলাইজড সোসাইটিতে। রঙ্গীন দুনিয়া সবসময় রঙ্গীন থেকে রঙ্গীনতম হতেই থাকবে। ফেঁসে যাবে উচ্চাভিলাষী কেউ কেউ। তাদের পেছনের পৃষ্ঠপোষকতাকারী গডফাদার নামের শুয়োরগুলো এলিট থেকে যাবে। পাবলিক হাসবে, মজা নিবে শোবিজের জোকারদের নিয়ে।

সবশেষে আসিফ লিখেছেন, তারা ভুলে যায় নিজের পরিবারেও এমন অভিশপ্ত কারও জন্ম হতে পারে। খারাপ আমিও, সবসময়ের জন্যই খারাপ। আমার রুটি রিজিক এর মালিক মহান আল্লাহ, নইলে এই পাপাচারক্লিষ্ট গান গাওয়া আমার পেশা কেন হবে! খুব বেশি খারাপ লাগলে বাংলাদেশের শোবিজ বয়কট করে আন্তর্জাতিক মাত্রার বিনোদন নিন।

শোবিজে অনেক খারাপ মানুষের ভিড়ে একজন সৈয়দ আব্দুল হাদী এবং ফেরদৌসী রহমান আন্টির মতো লিভিং লিজেন্ডরাও এখনো সভ্যতার উপমা হয়ে জীবিত আছেন এই বঙ্গদেশে। নিজেও সভ্য হোন, আর আমরা অসভ্যরা আপনার মতো সভ্যদের মঙ্গল কামনা করি সবসময়।