The Bangladesh Today | Uniting people everyday

ঢাকা মঙ্গলবার, ০৭ ডিসেম্বর ২০২১

বাংলাদেশের হিন্দু রক্ষায় ভারতে আইন সংশোধনের দাবি

বাংলাদেশের হিন্দু রক্ষায় ভারতে আইন সংশোধনের দাবি
কংগ্রেস নেতা মিলিন্দ দেওরা। ছবি: সংগৃহীত

বাংলাদেশে সংখ্যালঘু সম্প্রদায়ের ওপর হামলার পরিপ্রেক্ষিতে বাংলাদেশি হিন্দুদের রক্ষায় ভারতের বিতর্কিত নাগরিকত্ব সংশোধন আইন (সিএএ) সংশোধনের আহ্বান জানিয়েছেন কংগ্রেস নেতা মিলিন্দ দেওরা।

এক টুইটবার্তায় মিলিন্দ দেওরা বলেছেন, 'বাংলাদেশে সাম্প্রদায়িক সহিংসতা অত্যন্ত উদ্বেগজনক। ধর্মীয় নিপীড়ন থেকে পালিয়ে আসা বাংলাদেশি হিন্দুদের রক্ষা ও পুনর্বাসনের জন্য সিএএ সংশোধন করতে হবে। বাংলাদেশি ইসলামপন্থীদের সঙ্গে ভারতের মুসলমানদের এক করে দেখার সাম্প্রদায়িক অপচেষ্টাকেও ভারতের দমন ও প্রত্যাখ্যান করতে হবে।'

ইন্ডিয়ান এক্সপ্রেস জানায়, দুর্গাপূজায় পবিত্র কোরআন অবমাননার অভিযোগকে কেন্দ্র করে সাম্প্রদায়িক সহিংসতা সৃষ্টি হয়েছে বাংলাদেশে। পুরো পরিস্থিতিকে ‘চরম উদ্বেগজনক’ হিসেবে বর্ণনা করেছেন ভারতের বিরোধী দল কংগ্রেসের প্রভাবশালী নেতা মিলিন্দ দেওরা।

বাংলাদেশে ‘ধর্মীয় নিষ্পেষণ’ থেকে বাঁচতে যেসব হিন্দু পালিয়ে আসছে, তাদের রক্ষা ও পুনর্বাসন করা প্রয়োজন। সে জন্য অবশ্যই সিএএ ফের সংশোধন করতে হবে। এ ক্ষেত্রে ভারতীয় মুসলিমদের ‘বাংলাদেশি ইসলামপন্থীদের’ এক করে দেখার যেকোনো ‘কম্যিউনাল’ প্রচেষ্টা প্রত্যাখ্যান ও বানচাল করে দিতে হবে, বলেন তিনি।

প্রতিবেশী পাকিস্তান, আফগানিস্তান ও বাংলাদেশের হিন্দু, বৌদ্ধ, খ্রিস্টান, শিখ, জৈন ও পারসি অভিবাসীদের নাগরিকত্ব দিতে আইন করে ভারত। এটি সিভিল এভিয়েশন অথরিটি বা সিএএ নামে পরিচিত। এর সঙ্গে নেশনল রেজিস্টার অফ সিটিজেন্স বা এনআরসি নামে আরো একটি আইন করা হয়েছে, যেটি ভারতে থাকা মুসলিমদের বিরুদ্ধে ব্যবহারের অভিযোগ রয়েছে।

সম্প্রতি কুমিল্লায় একটি পূজামণ্ডপে পবিত্র কোরআন অবমাননার অভিযোগ সামনে আসলে চাঁদপুরের হাজীগঞ্জ, চট্টগ্রামের বাঁশখালী, কক্সবাজারের পেকুয়া ও নোয়াখালীতে মন্দিরে হামলা, ভাঙচুর ও হতাহতের ঘটনা ঘটে। এসব ঘটনায় ঢাকার সঙ্গে কথা বলে নয়া দিল্লি। বাংলাদেশে থাকা ৪ জন কনস্যুলেট ও ঢাকায় নিযুক্ত ভারতীয় হাইকমিশনার বিক্রম দোরাইস্বামী সংশ্লিষ্ট কর্মকর্তাদের সঙ্গে যোগাযোগ রাখছেন বলে চানিয়েছে ভারতীয় গণমাধ্যম।