The Bangladesh Today | Uniting people everyday

ঢাকা রবিবার, ২৬ সেপ্টেম্বর ২০২১

ডেঙ্গু প্রতিরোধে মেয়র আতিকের অসহায়ত্ব

ডেঙ্গু প্রতিরোধে মেয়র আতিকের অসহায়ত্ব
মিরপুর এলাকায় অভিযানের সময় ডিএনসিসি মেয়র আতিকুল ইসলাম। ছবি: সংগৃহীত

ঢাকা উত্তর সিটি করপোরেশনের (ডিএনসিসি) মেয়র আতিকুল ইসলাম বলেছেন, ‘ডেঙ্গু প্রতিরোধে নগরবাসীকে বার বার বলার পরও তারা সেভাবে সচেতন হচ্ছেন না। বিশেষ করে, নির্মাণাধীন ভবনের মালিকরা তাদের ভবন পরিষ্কার রাখার ব্যাপারে সচেতন হচ্ছেন না। আমরা অনেক জরিমানা, মামলা করেও তাদের কাছ থেকে আশানুরূপ সহযোগিতা পাচ্ছি না। সংশ্লিষ্ট সরকারি অনেক প্রতিষ্ঠানও সহযোগিতা করছেন না।’

সোমবার (২ আগস্ট) সকালে মিরপুরের শাহ আলী মাজার এলাকায় ডেঙ্গু ও চিকনগুনিয়া মশা নির্মূল অভিযান চলাকালে এসব কথা বলেন তিনি।

মেয়র আতিকুল ইসলাম বলেন, করোনার মধ্যে ডেঙ্গু হানা দিয়েছে। আমি বিভিন্ন এলাকায় যাচ্ছি এবং সেসব এলাকার কাউন্সিলর ও সংসদ সদস্যদেরকে এ অভিযানের সঙ্গে যুক্ত করার চেষ্টা করছি। আমরা প্রতি শনিবার ১০টায় ১০ মিনিট নিজের বাসা নিজ হাতে পরিষ্কার করব।

মেয়র বলেন, আমাদের অঞ্চল-২ এ ৮টি ওয়ার্ড রয়েছে। এখান থেকে যাওয়ার পরে প্রত্যেক কাউন্সিলর তার নিজ নিজ এলাকায় কাউন্সেলিং করবেন।

তিনি আরও বলেন, আমরা দেখেছি নগরীর ৬৫ শতাংশ লার্ভা নির্মাণাধীন ভবনে পাওয়া যাচ্ছে। আর ২০ শতাংশ লার্ভা পাওয়া যাচ্ছে ওয়াসার যেখানে মিটার রয়েছে সেখানে। বাকি লার্ভাগুলো মানুষের বাসাবাড়িসহ অন্যান্য স্থানে পাওয়া যাচ্ছে।

মেয়র বলেন, মরার উপর খাড়ার ঘা ডেঙ্গু। তার থেকে মুক্তির জন্য আমাদের সবাইকে এগিয়ে আসতে হবে। সিটি করপোরেশন থেকে আমরা চেষ্টা চালিয়ে যাচ্ছি। কিন্তু কোন বাড়ির ছাদ কিংবা বেলকনিতে যাওয়ার অধিকার আমাদের নেই। আমরা বিভিন্ন জায়গা থেকে ফিরে এসেছি।

তিনি বলেন, গত ২৭ জুলাই থেকে আমরা আবার কাজ শুরু করেছি। এতে ৫০৮টি স্থানে এডিসের লার্ভা পাওয়া গেছে। নিয়মিত মামলা করা হয়েছে ২০টি। জরিমানা করা হয়েছে প্রায় ২০ লাখ টাকা। এসময় একটি নির্মাণাধীন ভবনে এডিস মশার লার্ভা পাওয়া যাওয়ায় ২ এক লাখ টাকা ও অনাদায়ে ৬ মাসের জরিমানা করা হয়।